বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০
দৈনিক ইত্তেফাক

বাল্যবিয়ের কারণে পরীক্ষা দিতে পারেনি ৩৫ শিক্ষার্থী

আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০২৩, ০১:০০

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় একটি ইউনিয়নে বেড়েছে বাল্যবিবাহ। ইউনিয়নটিতে বোয়ালমারী উচ্চ বিদ্যালয় নামের একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৩৫ জন শিক্ষার্থী বাল্যবিবাহের কারণে গত এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেনি। ফলাফল বিপর্যয়ের পর এ ঘটনা উপজেলা জুড়ে আলোড়ন তুলেছে। সম্প্রতি ৬ষ্ঠ, ৭ম এবং ৮ম শ্রেণির বেশ কয়েক জন শিক্ষার্থীরও গোপনে বিয়ে দেওয়া হয়েছে।  

জানা যায়, ২০২৩ সালের এসএসসি পরীক্ষায় ৪৩ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য ফরম ফিলাপ করেছিল। কিন্তু পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে মাত্র আট জন। পাশ করেছে চার জন শিক্ষার্থী। শিক্ষক শিক্ষার্থী, কমিটির সদস্য এবং অভিভাবকরা বলছেন, বাকি ৩৫ জন শিক্ষার্থী বাল্যবিবাহের শিকার হয়ে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। স্থানীয়রা বলছেন, বিদ্যালয়ের পাশের উত্তর বোয়ালমারী, দক্ষিণ বোয়ালমারী, ছোপাগজসহ এই এলাকার বেশ কয়েকটি গ্রামে প্রতিনিয়ত নারী শিক্ষার্থীদের বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। রাতের আঁধারে বা অন্য কোনো এলাকায় নিয়ে গিয়ে শিক্ষার্থীদের অমতে বিয়ে দিচ্ছেন অভিভাবকরা। 

উত্তর বোয়ালমারী গ্রামের হাজেরা বেগম বলেন, ‘আমরা গরিব মানুষ। ভালো ছেলে পেয়েছি, তাই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি।’ পড়ালেখার খরচ জোগাতে পারি না।’ 

উত্তর বোয়ালমারী গ্রামের ফাতেমা বেগম জানান, শিক্ষকদের স্কুলের প্রতি গুরুত্ব কম। তারা দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন হলে এমন ঘটনা অনেকাংশে কমে আসবে। 

এ বিষয়ে ঐ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল ইসলাম বলেছেন, ‘এবার পরীক্ষা খারাপ হয়েছে, এটা সত্য। শুধু আমাদেরটা নয়, অনেক স্কুলের একই অবস্থা। আমরা মা সমাবেশ করি। শিক্ষার্থীদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে বলে আসি। স্কুলের অর্থ দিয়ে ফরম ফিলাপ করাই। পরীক্ষা দিতে কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য ভাড়াও দিই। তার পরও অভিভাবকরা মেয়েদের অল্প বয়সে গোপনে বিয়ে দেন। পরীক্ষা কেন্দ্রে আসতে দেন না। এ বিষয়ে অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে।’

বিদ্যালয়টির ব্যবস্থা কমিটির সভাপতি আকবর আলী বলেন, ‘করোনাকালীন সবচেয়ে বেশি বাল্যবিবাহ দেওয়া হয়েছে। এই এলাকার মানুষ সচেতন নন। আমরা চেষ্টা করছি। কিন্তু কাওকে বোঝানো সম্ভব হচ্ছে না। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ জরুরি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহাগ চন্দ্র সাহা জানান, এ ব্যাপারে তারা সচেষ্ট রয়েছেন। তবে বোয়ালমারী স্কুলের ঘটনাটি বেদনাদায়ক। আর যেন কোনো শিক্ষার্থী বাল্যবিবাহের শিকার না হয়, এই ব্যাপারে দ্রুত উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

ইত্তেফাক/এমএএম