বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

জমি লিখে না দেওয়ায় নির্যাতন, হাতুড়িপেটার পর স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করল স্বামী 

আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:০৩

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় জমি লিখে না দেওয়ায় দুই হাত বেঁধে হাতুড়িপেটার পর স্ত্রীর (৪৯) মাথা ন্যাড়া করে দিয়েছে মাদকাসক্ত স্বামী। সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে নিজ বাড়িতে এই রোমহর্ষক নির্যাতন চালান মসে সরকার। এ ঘটনায় স্বামী মসে সরকারকে (৬৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

পরে স্থানীয়দের সহায়তায় নির্যাতনের শিকার ওই নারীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

ভুক্তভোগী নারী জানান, মসে সরকারের সাথে ওই নারীর ৩০ বছরের সংসার। সম্প্রতি পিতার বাড়ি থেকে কিছু জমি পেয়েছেন তিনি। সেই সম্পত্তি নিজের নামে লিখে নেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছিলেন ভুক্তভোগীর মাদকাসক্ত স্বামী। স্বামীর এই প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাদের মধ্যে চলছিল টানাপোড়েন। সোমবার সকালে আচমকা ঘরে ঢুকে তাকে কিলঘুষি মারেন মসে সরকার। একপর্যায়ে ওড়না দিয়ে দুই হাত বেঁধে শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাতুড়ি দিয়ে পেটান। শারীরিক নির্যাতনের পর মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে দেন। এ ঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ওই নারী। 

স্থানীয়রা জানায়, কান্নার শব্দ শুনে বেলা ১১ টার দিকে প্রতিবেশীরা ওই নারীকে উদ্ধার করে বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসা দিয়ে তাকে হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে। 

বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রেজাউল করিম বলেন, নির্যাতনের শিকার নারীর দুই হাত-মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আঘাতগুলো গুরুত্বর কি না তা বোঝার জন্য পরীক্ষা করা হবে। 

প্রতিবেশী মোকলেসুর রহমান ও আমেনা বেগম ইত্তেফাককে জানান, জমিজমা নিয়ে মসে সরকার প্রায়শই ওই নারীকে নির্যাতন করত। বাকবিতণ্ডা, গালমন্দ করার পাশাপাশি গায়েও হাত তুলত। শারীরিক নির্যাতনের শেষে  চুল কেটে দেওয়ার পর বিষয়টি তারা জানতে পারেন। পরে স্বজনদের খবর দিয়ে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। 

বাগাতিপাড়া মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বেনজির আহমেদ ইত্তেফাককে বলেন, নির্যাতনের শিকার নারী থানায় বাদি হয়ে স্বামী মসে সরকারকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেছেন। পুলিশ অভিযুক্ত মসে সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে স্ত্রীর ওপর চালানো নির্যাতনের কথা শিকার করেছেন মসে সরকার। অভিযুক্তকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

ইত্তেফাক/এসএআর/পিও