বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ঈদে যেভাবে সাজাবেন অন্দর

আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:০০

খুব বেশিদিন বাকি নেই। ইদুল ফিতরের প্রস্তুতি ইতোমধ্যে নেয়া শুরু হয়ে গেছে। ঈদের আমেজ এখন সারা শহরজুড়ে। ইট-পাথরের শহরে আনন্দ মানেই ঘরের অন্দর। ঈদের আয়োজনে তাই অন্দরকে গুছিয়ে নেওয়ার ভাবনাই থাকে প্রধান। এই প্রধান ভাবনাকে পুঁজি করেই আপনার প্রস্তুতি নেওয়া জরুরি। 

প্রস্তুতি নিন আগে থেকে
ঈদের আগের দিন অনেকে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন। তবে আপনার উচিত অন্তত সপ্তাহখানেক আগে থেকে পরিবর্তন ও গোছগাছ শুরু করা। ভারি কাজগুলো আগে থেকেই করে নিন। ঘরে ময়লা সাফসুতরো করার কাজটি আগে থেকেই করতে হবে। নাহলে ঠিক মানানসই হবে না।

শুরু হোক শোবার ঘর দিয়ে
গরমে পড়বে ঈদ এবং একই সঙ্গে বৃষ্টির কিছু আভাস। এসব ভেবেই ঈদে বেডরুম বা শোবার ঘর সাজানোর ক্ষেত্রে প্রাধান্য দিন প্রশান্তিকে। হালকা রঙের বিছানার চাদর ব্যবহার করুন। চাদরের ক্ষেত্রে আদ্দি, খাদি, সুতি, ভয়েল ইত্যাদি কাপড় বেছে নিতে পারেন।

কড়া রোদ তো যন্ত্রণা হতেই পারে। সেজন্য ভারি পর্দা আর উজ্জ্বল রঙের পিলো কভার রাখুন খাটে। ঘরে তাজা ফুল বা ইন্ডোর প্লান্ট রাখলে মন্দ দেখাবে না। অন্দরমহল সাজানোর আগে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত জরুরি। জানালার গ্রিল, ফ্যান এসব মুছে ফেলুন। টয়লেট, বেসিন ধুয়ে মেজে পরিষ্কার করে ফেলুন। পুরোনো সোফার কভার বদলে ফেলুন।

ওয়েলকাম কার্ড
ঈদে সাজাতে পারেন শোবার ঘরের দেয়াল। কারুকাজ করা একটি বড় আয়না রাখতে পারেন। চাইলে ক্যানভাস বা অন্যান্য দেওয়াল সজ্জাও ব্যবহার করতে পারেন। াবার দেয়ালে স্বাগতম জানিয়ে কিছু কার্ড বা ডেকোরেশন যুক্ত করা যেতেই পারে। নিজের ঘর সাজাতে নানারকম ছবির গ্যালারি করতে পছন্দ করি। কিন্তু যেকোন কিছুই ছন্নছাড়া করে করলে ভাল দেখায় না। একটা রঙের কথা মাথায় রেখে তবেই নকশা করতে হবে। আপনার দেয়াল যদি সাদা রঙের হয়ে থাকে তবে সেখানে কালো ফ্রেমের গ্যালারি বেশ মানাবে। ছবির গ্যালারি তৈরি করতে খেয়াল রাখবেন যেন একটা না একটা রঙ তাতে মিলিয়ে ছবির ফ্রেমেও একটা অ্যাকসেন্ট রাখার চেষ্টা করবেন।  যেহেতু ঈদ তাই সবকিছুতে বিভিন্ন রকমের রঙের ব্যবহার করাটা ভালো হবে।

লাইটিং
ঘরের ভেতর ডেকোরেশনটাও তো চাই। ঘরের সব গুরুত্বপূর্ণ অংশে লাইটিং সাজিয়ে নিন। ঈদে স্টেটমেন্ট তৈরি করতে জুড়ি নেই পেনডেন্ট লাইটের। প্রতিটি ঘরে নানা ধরনের আলোয় রাঙালে বেশ মানাবে। বসার ঘরে লাগাতে পারেন রকমারি পেনডেন্ট লাইট। স্টিল, পিতল ইত্যাদি ব্যবহার করে একটি বা দুটি আলোর সেট। আপনি চাইলে ঝাড়বাতির সঙ্গে ম্যাচিং করে ওয়াল ব্রাকেটও নিতে পারেন। ব্রাকেট ব্যবহার করতে চাইলে বসার ঘরের জানালার ওপর সেট করুন। বড় বসার ঘরে অথবা ফলস সিলিং বসানো থাকলে সোফার এক পাশে রাখতে পারেন গাছের আদলের পেনডেন্ট লাইট।

অ্যালুমিনিয়াম স্ট্যান্ডে ক্রিস্টাল আর কাঁচের তৈরি এই লাইট বেশ জমকালো ভাব আনবে ঘরে। লাইটের আলো গাছ বা যেকোন শোপিসের সৌন্দর্য আরও দ্বিগুণ করে তুলবে। পেনডেন্ট বা একসেন্ট লাইটিং অন্দরে এনেছে মর্ডান স্থাপত্যের ছোঁয়া। খেয়াল রাখবেন ঘরের লাইটিংটা যেন বেশ উৎসবমুখর হয়। ডেকোর লাইট রাখলেও তো সমস্যা নেই। তাতে বরং আয়োজন আরও ভালোই হবে।

রাগস ও কার্পেট
পুরো ডেকর কে বদলাতে বললো। কিছু কিছু অংশ উজ্জ্বল করতে রাগস বা কার্পেটের জুড়ি নেই। চকচকে বা উজ্জ্বল রঙের রাগসগুলো ঘরকে মুহূর্তেই উজ্জ্বল করতে পারে। ঘরের দেয়ালের রং যেমনই হোক না কেন রঙিন বা বাহারি নকশার রাগসগুলো সবসময়ই ঘরে নতুন আবহ দেয়। রাগস বা কার্পেটে এসেছে প্রিন্টে। সুতরাং, ঘরের মেঝেটা আপনি মনের মত করে সাজিয়ে নিতে পারছেন। অন্যদিকে কার্পেট বেশ কার্যকরী এবং যেকোন ঘরকে আরামদায়ক করে তোলে।

খাবার টেবিল গোছানো থাকুক
অথিতিদের তো আর বিব্রত করতে পারেন না। তাই খাবার টেবিল সবসময় গোছালো রাখুন। বড় বড় ডিশে মিষ্টান্ন রাখতে পারেন। তারই পাশে ছোট প্লেট আর চামচ সাজিয়ে ফেলুন। এভাবে ব্যুফের মতো যে যার প্রয়োজনমতো পছন্দের খাবার নিয়ে খেতে পারবেন। খাবার টেবিলে মিষ্টি খাবারের পাশাপাশি দুই একটি টক ঝাল খাবার রাখুন। চটপটি, পাকোড়া, নুডলস, স্যান্ডউইচ ইত্যাদি তৈরি করতে পারেন। খাবার টেবিলের সৌন্দর্য বাড়াতে হালকা রঙের নেটের টেবিল ক্লথ বিছাতে পারেন। শতরঞ্জির টেবিল ম্যাট ও রানার বিছিয়ে দিন।

সবুজ মোড়া ঘর
ঈদের জন্য ঘরে সবুজের ছোঁয়া দিন। ইনডোর প্লান্ট নানা জায়গায় সাজিয়ে রাখুন। গাছ দিয়ে ঘর সাজানোর মতো রুচিশীল ডেকরেশন হয় না। ঈদ উপলক্ষে নতুন টব কিনতে পারেন। সাদা বা সোনালি রঙের টব হলে খুব ভালো হয়। ফুলদানিতে সাদা-হলুদ কিংবা সাদা-হালকা গোলাপি রঙের ফুল রাখুন।

ইত্তেফাক/এআই

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন