ঢাকা রবিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৩ মাঘ ১৪২৭
১৪ °সে

কোনো কিছু ভুলে যাওয়া অসম্ভব!

অ্যাপই মনে করিয়ে দিবে সব

অ্যাপই মনে করিয়ে দিবে সব
ছবি: ইত্তেফাক

বর্তমানে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ফোন ব্যবহার করা হয়। যারা বিভিন্ন বিষয় যারা ভুলে যান তাদের সহায়ক হতে পারে স্মার্টফোন। ধরুন, আপনি অফিস থেকে ফিরছেন কিন্তু ফেরার পথে বিদ্যুতের বিল পে করার কথা ভুলেই গেছেন। যদি আপনার ফোনের অ্যাপ আপনাকে মনে করিয়ে দেয়, আপনি সেই জায়গা দিয়ে যাওয়ার সময় বা সে জায়গা ছেড়ে গেলে, আপনার ফোন আপনাকে নোটিফিকেশন দিয়ে জানিয়ে দেবে। বিষয়টি কেমন হয়? এমন কিছু বেস্ট অ্যান্ড্রয়েড রিমাইন্ডার অ্যাপ নিয়েই সাজানো হয়েছে লেখাটি।

গুগল কিপ (Google Keep)

যেহেতু অ্যান্ড্রয়েড গুগলের প্রোডাক্ট, তাই অন্য অ্যাপ সাজেস্ট করার আগে আমি খুঁজে দেখতে পছন্দ করি, সেই কাজের জন্য গুগল নিজেই কোনো অ্যাপ বানিয়ে রেখেছে কি না। কারণ, গুগলের অ্যাপগুলো ব্যবহার করতে সুপার ইজি এবং এক অ্যাকাউন্ট থেকেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করা যায়। গুগল কিপ—একটি সাধারণ নোট লেখার অ্যাপ, যেখানে লোকেশন নির্ভর অনুস্মারক ব্যবস্থা রয়েছে। সবচাইতে ভালো কথা হচ্ছে, অ্যাপটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যের। সঙ্গে অ্যাপটি আপনার অনুস্মারক নোটটি সকলের সঙ্গে শেয়ার করার অপশন পাবেন। আপনার যে বন্ধুর কেবলমাত্র একটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট রয়েছে, তাকেই নোট সেন্ড করতে পারবেন। গুগল কিপের শুধু অ্যাপ নয়, https://keep.google.com —থেকে ওয়েব অ্যাপ ব্যবহার করেও আপনি নোটগুলোকে ম্যানেজ বা নতুন অনুস্মারক নোট তৈরি করতে পারবেন।

গুগল অ্যালো (Google Allo)

যদিও গুগল অ্যালো একটি ম্যাসেজিং অ্যাপ, কিন্তু তার পরেও এটি অনেক কিছু করতে পারে। এই অ্যাপটিতে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট রয়েছে, যেটা এই অ্যাপটির চ্যাটবট আকারে আচরণ করে। আপনি এই চ্যাটবটকে যে কোনো বিষয়ে জিজ্ঞাসা করতে পারেন বা যে কোনো ভার্চুয়াল কাজের দ্বারা করিয়ে নিতে পারেন। আপনি লিখে বা ভয়েজ কম্যান্ড দেওয়ার মাধ্যমে ফোনে রিমেইন্ডার সেট করিয়ে নিতে পারেন, ফোন থেকে পরে আপনাকে সময় অনুসারে মনে করিয়ে দেওয়া হবে। যদিও এই অ্যাপটি এখনো এতবেশি জনপ্রিয় নয়, তবে এতে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট থাকার জন্য অনেক মজা নিতে পারবেন এই অ্যাপটির থেকে। সঙ্গে রিমেইন্ডার সেট করার জন্য আপনার কাছে থাকল এক ইউনিক অ্যাপ।

জিওবেলস (Geobells)

জিওবেল অ্যাপটি কিছু অসাধারণ ফিচারে প্যাকেট করা একটি অসাধারণ অ্যাপ। আপনি কোনো জায়গায় যাওয়ার সময় বা ঐ জায়গা পাশ কাটিয়ে যাওয়ার সময় রিমেইন্ডার সেট করে রাখতে পারবেন। আপনি যে কোনো জায়গাকে রিমেইন্ডার হিসেবে সেট করে রাখতে পারবেন, সেটার অ্যাড্রেস থাকারও কোনো দরকার পড়বে না, কেন না অ্যাপটিতে আপনি ইন-বিল্ড ম্যাপ ফিচার পাবেন। আবার আপনি যে কোনো লোকেশন সেখানে খুঁজেও পেতে পারবেন। ধরুন, আপনি টাইপ করলেন, ‘রেস্টুরেন্ট’—তো অ্যাপটি আপনাকে আপনার আশপাশের কিছু রেস্টুরেন্টের লোকেশন খুঁজে বের করে আপনাকে দেখাবে। বাসাতে ফেরার পথে আপনাকে কাঁচা বাজারে যেতে হবে সবজি কেনার জন্য, তো কাঁচা বাজারের কাছে যেতেই বা বাজার অতিক্রম করে চলে যেতেই অ্যাপটি আপনাকে অ্যালার্ট প্রদান করবে।

আরও পড়ুন: সিনেমাটিতে সার্ফিং-এর মধ্য দিয়ে একটি গল্প বলা হয়েছে

টুডুইস্ট (Todoist)

একটি টুডু লিস্ট অ্যাপ হিসেবে যা যা থাকা প্রয়োজনীয়, সবকিছুই এই টুডুইস্ট অ্যাপটিতে পাবেন। শুধু অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ নয়; ক্রোম এক্সটেনশন এবং পিসির জন্য এদের সফটওয়্যার রয়েছে। আপনি সব ডিভাইসগুলোর মধ্যে আপনার টুডু লিস্টগুলোকে আরামে সিঙ্ক করতে পারবেন এবং যে কোনো ডিভাইস থেকে নোটিফিকেশন পেয়ে যাবেন। কিন্তু এই অ্যাপটির একটি ডাউন সাইড হচ্ছে, কেবল এর প্রিমিয়াম ভার্সনেই আপনি রিমেইন্ডার ফিচারটি পাবেন। যা-ই হোক, এর ফ্রি ভার্সনটিও বেশ ভালো। যদি আপনার রিমেইন্ডার ফিচারটির দরকার না থাকে, তবে টুডু লিস্ট হিসেবে এর ফ্রি ভার্সনই অসাধারণ।

টু ডু লিস্ট (To Do List)

টু ডু লিস্ট—একটি সিম্পল লাইট ওয়েট টু ডু লিস্ট অ্যাপ; যা-ই হোক, এই টাইপের অ্যাপে যা যা থাকা প্রয়োজনীয়, সবকিছুই রয়েছে এতে। এখানে আপনি সহজেই যে কোনো টাস্ক ক্রিয়েট করতে পারবেন এবং সহজভাবে ব্রাউজ করার জন্য টাস্কগুলোকে গ্রুপও করতে পারবেন। তাছাড়া এই অ্যাপটিকে গুগল টকের সঙ্গে সিঙ্ক করতে পারবেন। মানে ডিভাইজ চেঞ্জ করা পরে কিংবা নতুন ফোন কিনলে সেখানে একই অ্যাকাউন্ট দিয়ে সাইন ইন করলে, আপনার লিস্টগুলো ব্যাক পাবেন। নিঃসন্দেহে এটি একটি ভালো রিমেইন্ডার অ্যাপ। এর প্রিমিয়াম ভার্সনও রয়েছে, তবে ফ্রি ভার্সন দিয়েই অনেক কিছু করতে পারবেন। তাই আপনার মাস্ট ট্রাই করে দেখা প্রয়োজনীয়।

এনি ডট ডু (Any.Do)

এনি ডট ডু একটি টু ডু লিস্টভিত্তিক রেমিন্ডার অ্যাপ। অ্যাপটির সবচাইতে ভালো ব্যাপার হলো এর অসাধারণ ইন্টারফেস। এক কথায় বলতে, এটি অসাধারণ এক রিমেইন্ডার অ্যাপ। যে কোনো কিছু মনে রাখার জন্য বেস্ট অ্যাপ এটি, ধরুন দোকান থেকে চাল কিনে আনতে হবে, এসব কাজের জন্য ক্যালেন্ডার অ্যাপ থেকেও এটি ব্যবহারে বেশি সহজ। তাছাড়া অ্যাপটির ইন্টারফেসে ব্যবহার করা হয়েছে, ম্যাটেরিয়াল ডিজাইন (আমি ম্যাটেরিয়াল ডিভাইজের অনেক বড়ো এক ফ্যান), রিমেইন্ডারের সঙ্গে সঙ্গে আপনি এতে হোম টাস্কগুলোও সেট করে রাখতে পারবেন। রিমেইন্ডার অ্যাপ হিসেবে, এটাকে একবার ট্র্যাই করা তো অবশ্যই উচিত্, কে জানে, পছন্দও হয়ে যেতে পারে আপনার।

ইত্তেফাক/এএএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২৬ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন