রংপুর বিভাগে করোনায় একদিনে আক্রান্ত ১৩০, মৃত্যু ৩ 

রংপুর বিভাগে করোনায় একদিনে আক্রান্ত ১৩০, মৃত্যু ৩ 
রংপুর বিভাগে করোনায় একদিনে আক্রান্ত ১৩০, মৃত্যু ৩ ।ফাইল ছবি

রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় আজ বুধবার (৫ আগস্ট) পর্যন্ত করোনায় সাংবাদিকসহ বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ নিয়ে এই বিভাগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৬ হাজার ৭২৯ জন এবং মৃত্যু আরও ৩ জন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৭ জনে।

রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. আমিন আহম্মেদ খাঁন এক প্রেস বার্তায় এ তথ্যে জানান, বুধবার সকাল ৮ টা পর্যন্ত একদিনে রংপুর বিভাগের ৭ জেলায় করোনা ভাইরাসে নতুন করে ১৩০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এ সময়ে দিনাজপুরে ১ জন, পঞ্চগড়ে ১ জন এবং কুড়িগ্রামে ১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে রংপুর বিভাগের ৭ জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন আক্রান্তের মধ্যে দিনাজপুরে ৭৭, রংপুরে ২৮, কুড়িগ্রামে ১১, লালমনিরহাটে ৯, গাইবান্ধায় ৩, নীলফামারী জেলায় ৩ জন এবং ঠাকুরগাঁও জেলায় ১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগের ৮ জেলায় করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৬ হাজার ৭২৯ জনে এবং এই বিভাগের ৮ জেলায় মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১৭ জনে।

আরও পড়ুন: রিমান্ড শেষে সাতক্ষীরা কারাগারে সাহেদ

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার পর্যন্ত এই বিভাগের মধ্যে এ পর্যন্ত রংপুর জেলাকে ছাড়িয়ে দিনাজপুর জেলায় সর্বোচ্চ সংখ্যক আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৮৬৪ জনে এবং মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৯ জনে। রংপুর জেলায় এ পর্যন্ত মোট ১ হাজার ৭৬৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এবং মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ৩১ জনে। এছাড়া নীলফামারী জেলায় আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ৬৭২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৯, গাইবান্ধা জেলায় আক্রান্ত সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৮৮ জন এবং মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ১২ জনে, ঠাকুরগাঁয় আক্রান্ত দাঁড়িয়েছে ৪২৮, মৃত্যু বেড়ে হয়েছে ৮ জনের, পঞ্চগড়ে আক্রান্ত ৩৪৫ এবং মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ জনে, লালমনিরহাট জেলায় আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ৪২৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ জনের। এছাড়া কুড়িগ্রামে আক্রান্ত বেড়ে হয়েছে ৫৪০ জন এবং মৃত্যু বেড়ে হয়েছে ৯ জন ।

এদিকে করোনা সন্দেহে এই বিভাগে গত একদিনে আরও ৫৪৩ জনসহ হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা মোট সংখ্যা দাঁড়ালো ৬২ হাজার ৪৪৩ জন। এছাড়া রংপুর বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৫১ জনসহ মোট ৫৭ হাজার ৭৮৬ জনকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। এসব জেলা থেকে এ পর্যন্ত ৪ হাজার ৭৬৫ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত