ঢাকা শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬
৩০ °সে


বিএনপি নেতা শাহীন হত্যা : প্রধান আসামি আমিনুল ৫ দিনের রিমান্ডে

বিএনপি নেতা শাহীন হত্যা : প্রধান আসামি আমিনুল ৫ দিনের রিমান্ডে
বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন হত্যকাণ্ডের প্রধান আসামি আমিনুল ইসলাম। ছবি-সংগৃহীত

বগুড়ায় বিএনপি নেতা পরিবহন ব্যবসায়ী অ্যাডভোকেট মাহবুব আলম শাহীন হত্যা মামলার প্রধান আসামি বগুড়া মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামের ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

বুধবার দুপুরে তাকে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক মোহাম্মদ বিলাল হোসাইন ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-শহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আমবার হোসেন জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে গ্রেফতারের পর আমিনুল ইসলামকে সরাসরি বুধবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে আদালতে নেয়া হয়।

আরও পড়ুন : শ্রীলঙ্কার ব্যর্থ পুলিশ প্রধানকে পদত্যাগের নির্দেশ

পরিবহন মালিকদের নেতা আমিনুল ইসলাম বগুড়া পৌরসভার একজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং প্যানেল মেয়র। যে কারণে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে তাকে পুলিশের জ্যাকেট এবং হেলমেট পরিয়ে আদালতে হাজির করা হয়।

এ সময় আমিনুল ইসলামের বাবা বগুড়া মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল লতিফ মন্ডলসহ পরিবহন মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীকে আদালত চত্বরে ভিড় করতে দেখা যায়। তবে জেলা আইনজীবী সমিতির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোন আইনজীবীকে আমিনুল ইসলামের পক্ষে জামিন প্রার্থনা করতে দেখা যায়নি।

বগুড়া সদর উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক শাহীন গত ১৪ এপ্রিল রাতে উপশহর বাজারে খুন হন। ওই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে বগুড়া মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে ১৬ এপ্রিল মামলা করেন নিহত শাহীনের স্ত্রী আকতার জাহান শিল্পী।

এজাহারে তিনি অভিযোগ করেন মোটর মালিক গ্রুপের নেতৃত্ব নিয়ে দ্বন্দ্বের কারণেই আমিনুল তার সহযোগীদের নিয়ে শাহীনকে পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে। মামলার পরদিন রাসেল ও পায়েল সেখ নামে দুই আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের মধ্যে পায়েল ওই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে গত ১৮ এপ্রিল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়।

এজাহারভুক্ত রাসেলকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। এরপর রিমান্ডে থাকা অবস্থায় রাসেলও গত ২১ এপ্রিল স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, জবানবন্দিতে তারা মোটর মালিক গ্রুপের শীর্ষ এক নেতার পরিকল্পনা অনুযায়ী শাহীনকে হত্যার কথা স্বীকার করে।

তাদের জবানবন্দির ভিত্তিতে পুলিশ ২৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় ঢাকার মতিঝিলে বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম এলাকা থেকে মামলার প্রধান আসামি বগুড়া মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর পরই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আমবার হোসেন তাকে নিয়ে রাতেই বগুড়ার উদ্দেশ্যে রওনা হন।

বগুড়ার কোর্ট ইন্সপেক্টর আবুল কালাম আজাদ জানান, আমিনুল ইসলামকে দুপুরে আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। শুনানি শেষে আদালত তাঁর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে।

বগুড়া আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম জানান, বারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোন আইনজীবী আসামির পক্ষে দাঁড়াননি। তিনি বলেন, নিহত মাহবুব আলম শাহীন একজন আইনজীবী ছিলেন। তাই বার সমিতি সিদ্ধান্ত নেয় তাদের কোন সদস্য এই মামলার কোন আসামির পক্ষে দাঁড়াবেন না।

ইত্তেফাক/কেআই

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন