ঢাকা রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২৩ °সে


আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের ৫ জঙ্গিসহ ইসলামী ছাত্রী সংস্থার ১৩ নারী গ্রেফতার

আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের ৫ জঙ্গিসহ ইসলামী ছাত্রী সংস্থার ১৩ নারী গ্রেফতার
র‌্যবের অভিযানে গ্রেফতার আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের ৫ সদস্য। ছবি: সংগৃহীত

পাবনায় গোপন বৈঠক চলাকালে ইসলামী ছাত্রী সংস্থার ১৩ নারী সদস্যসহ এক মাদরাসার অধ্যক্ষকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার (১৩ আগস্ট) রাতে পাবনা শহরের মনসুরাবাদ আবাসিক এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। একই দিন পাবনার বেড়া ও সাঁথিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে র‌্যাব-১৪ ময়মনসিংহের একটি দল অভিযান চালিয়ে ৫ যুবককে আটক করে। র‌্যাবের দাবি, আটক যুবকরা আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সদস্য।

গোপন বৈঠককালে আটক ইসলামী ছাত্রী সংস্থার ১৩ জন ছাত্রী।

সোমবার পাবনা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ নাছিম আহম্মেদ জানান, মনসুরাবাদ আবাসিক এলাকার ৫নং সড়কের ১১৯ নং বাড়ির মালিক সাঁথিয়া উপজেলার ধুলাউড়ি কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আনোয়ার হোসেন। দ্বিতল এই বাড়ির নিচ তলায় ইসলামী নারী সংস্থার সদস্যদের আস্তানা ছিল। এখান থেকে মেয়েদের সংগঠিত করে নাশকতার ছক করা হচ্ছিল। গোপনে খবর পেয়ে পুলিশ রবিবার রাত দশটার দিকে বাড়িটি ঘিরে ফেলে এবং সেখান থেকে বৈঠকরত অবস্থায় ইসলামী ছাত্রী সংস্থার ১৩ নারী সদস্য এবং বাড়ির মালিক অধ্যক্ষ আনোয়ার হোসেনকে আটক করে। আস্তানা থেকে বিপুল সংখ্যক জিহাদি বই, জঙ্গি সদস্য সংগ্রহের বিপুল পরিমাণ ফরম, চাঁদা আদায়ের রশিদ ও আদায়কৃত নগদ অর্থ, ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন ধরনের সাংগঠনিক বই, রেজিস্টার, বিভিন্ন ধরনের লিফলেট উদ্ধার ও জব্দ করা হয়েছে। আটককৃতদের অধিকাংশই পাবনা এডওয়ার্ড কলেজের ছাত্রী। তাদের দুপুরের পর আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।

আরও পড়ুন: পরকীয়ার বলি হলেন কুলসুম

এদিকে র‌্যাব-১৪ ময়মনসিংহের একটি দল বেড়া ও সাঁথিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের ৫ যুবককে আটক করেছে। আটককৃতরা হলেন, পাবনা সাঁথিয়া উপজেলার রাঙামাটিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল ছাত্তারের ছেলে রুহুল আমিন (২৩), বেড়া উপজেলার ঘাটিগাড়া গ্রামের ওয়াদুদ আলীর ছেলে ওয়াজেদ আলী (৩০), একই উপজেলার সম্ভুপুর গ্রামের আব্দুস ছামাদের ছেলে আবুল কালাম আজাদ (৩০), ছোট পায়রা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মো. আব্দুল্লাহ (২১), একই গ্রামের সিদ্দিক আলীর ছেলে মিজান হোসেন (২৩)।

র‌্যাব-১৪ এর বরাত দিয়ে পাবনা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, এরা সকলেই আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সক্রিয় সদস্য। আটকের পর তাদের বেড়া থানায় হস্তান্তর এবং মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/এসি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৭ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন