ঢাকা শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬
২৯ °সে

মেলেনি প্রতিবেশীদের সাহায্য, সাইকেলে করে মায়ের দেহ সৎকারে ছেলে

মেলেনি প্রতিবেশীদের সাহায্য, সাইকেলে করে মায়ের দেহ সৎকারে ছেলে
সাইকেলে করে মায়ের দেহ সৎকার করতে নিয়ে যাচ্ছে ছেলে। ছবি: সংবাদ প্রতিদিন

মা মারা গেছেন। সন্তানের জন্য সবচেয়ে কঠিন সময় এটি। এসময় সাধারণত আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন। দেন সান্ত্বনা। কিন্তু ছেলে সরোজের ভাগ্যে সেটা আর হয়নি, বরং পেয়েছেন প্রতিবেশীদের অসহযোগিতা।

ঘটনাটি ভারতের ওড়িশার। সুন্দরগড়ের বাসিন্দা সরোজ। কৃষক এই যুবকের মা বৃহস্পতিবার মারা যান। হাতে টাকা না থাকায় প্রতিবেশীদের কাছে সাহায্য চান। কিন্তু সাহায্য না পেয়ে সৎকারের জন্য সাইকেলে করে মায়ের দেহ নিয়ে যার শ্মশানে৷

ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়, শৈশবেই সরোজের বাবা মারা যায়। তারপর থেকে মা জানকী সিংহানিয়াই সংসার চালাতেন৷ বাড়ির কাজ থেকে ছেলের দায়িত্ব সবই একা হাতে সামলাতেন তিনি। সকালে বাড়ির কুয়ো থেকে পানি তুলছিলেন তিনি৷ সেই সময় আচমকাই উঠোনে পড়ে অচৈতন্য হয়ে যান৷ মারা যান জানকী৷

আরো পড়ুন: মাস্টার্সের ক্লাস নিলেন তথ্যমন্ত্রী

মা ছাড়া আর কেউই ছিল না সরোজের৷ মা মারা যাওয়ার পর দিশাহারা হয়ে পড়েন। এমন কঠিন সময়ে পাশে পাননি প্রতিবেশীদের৷ ‘নিচু’ জাতের কারণে তার কপালে সাহায্য যুটেনি৷ তাই বাধ্য হয়ে মাথা থেকে পা পর্যন্ত কাপড় দিয়ে মায়ের দেহ মুড়ে সাইকেলে চাপিয়ে নেন।

এরপর চার-পাঁচ কিলোমিটার দূরের জঙ্গলে নিয়ে যান মায়ের মরদেহ৷ পথে বেশ কয়েকজনের সঙ্গে দেখা হয় তার৷ কৌতূহলীদের নানা প্রশ্নেরও মুখোমুখি হতে হয় তাকে৷ শেষ পর্যন্ত একাই জঙ্গলে গিয়ে মায়ের দেহ সৎকার করেন।

এ ঘটনার পর ভারতে ধর্ম-বর্ণের বৈষম্য নিয়ে বেশ সমালোচনা শুরু হয়। অনেকে বলেন, এখনো ভারত এই বৈষম্য থেকে বের হয়ে আসতে পারেনি।

ইত্তেফাক/জেডএইচ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ এপ্রিল, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন