শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২১ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

সন্ধ্যার পর সাভারের অলিগলি চলে যায় ছিনতাইকারীদের দখলে!

আপডেট : ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৬:০৫

সাভার ছিনতাইকারীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। উপজেলার সাভার ও আশুলিয়া থানা এলাকায় সন্ধ্যার পরই বিভিন্ন অলিগলির মোড়ে ছিনতাই প্রায় নিত্যদিনের ঘটনা। বাদ যাচ্ছে না সড়ক-মহাসড়কও। গভীর রাতে সড়কে চলাচলরত গাড়িতে পাথর, ইটের টুকরা ও ডিম নিক্ষেপ কিংবা যাত্রীবেশে কেড়ে নেওয়া হয় যাত্রী ও চালকদের সর্বস্ব। 

সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ড ও এর আশপাশ এলাকায় একাধিক বৃহত্ শপিংমলসহ বিভিন্ন ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, বিমা, দোকানপাট, স্বর্ণের দোকান, বাজার, স্কুল, কলেজ ও সরকারি একাধিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। বর্তমানে এ স্ট্যান্ড ও আশপাশ এলাকাটি পরিণত হয়েছে সন্ত্রাসী ও ছিনতাইকারীদের বিচরণ ভূমিতে। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কেও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে। একাধিক তরুণ যুবক ঘুরে ঘুরে বিক্রি করছে ইয়াবা ও গাঁজাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য। আর একটু সন্ধ্যা বা রাত হলেই বিভিন্ন গলির মোড়ে অবস্থান নিয়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সাধারণ মানুষের টাকাপয়সা লুটে নিচ্ছে তারা। 

সম্প্রতি সাভারের সিঅ্যান্ডবি এলাকায় বাস থেকে নামার পর ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়ার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু বকর সিদ্দিক। এ সময় ছিনতাইকারীরা তার পেটে, বুকে ও পিঠে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে তার কাছে থাকা মোবাইল ও টাকা-পয়সা নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে এনাম মেডিক্যাল হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনার হোতা ট্যারা রাসেলকে গ্রেফতার করেছে র্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র্যাব)। এছাড়া এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরো কয়েক ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

এর আগে সাভারের ব্যাংক টাউন এলাকায় এক অটোরিকশা চালকের হাত-পা বেঁধে তার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটি ছিনতাই করে সংঘবদ্ধ ছিনতাই চক্রের সদস্যরা। অটোরিকশাটি ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ব্যাংক টাউন ব্রিজের সামনে পৌঁছলে তিন ছিনতাইকারী চালককে মারধর শুরু করে। পরে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে তার হাত-পা বেঁধে মহাসড়কের পাশে ফেলে রেখে অটোরিকশাটি ছিনতাই করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় স্থানীয়রা ঐ চালককে উদ্ধার করে থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ ভোরে অভিযান চালিয়ে দুই ছিনতাইকারীকে আটক এবং তাদের কাছ থেকে ছিনতাই করা দুটি অটোরিকশা ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। সাভার পৌরসভার গেন্ডা মহল্লার বিলপাড়ে সম্প্রতি অটোরিকশা চালক আমিনুলকে মারধর করে অটোরিকশা ছিনতাই করা হয়। বাজার বাসস্ট্যান্ডে গত শুক্রবার এক নারীর কানের দুল ছিনিয়ে নিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা। এতে ঐ নারীর কান কেটে যায়।  

অনুসন্ধানে জানা গেছে,  গেন্ডা বাসস্ট্যান্ড, শিমুলতলা, উলাইল, পাকিজা মোড়, সিঅ্যান্ডবি, পল্লী বিদ্যুৎ, রাঙ্গাবন নার্সারি, বাইপাইল, কবীরপুর, জামগড়াসহ প্রায় ২০টি স্পটে ছিনতাইকারীদের বিচরণ রয়েছে। এ চক্রটি তিন-চার ভাগে বিভক্ত হয়ে এ অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড পরিচালিত করছে। তারা একের পর এক ছিনতাই, চুরি, মাদক ব্যবসা করে বেড়ালেও রয়েছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। দূরদুরান্ত থেকে আসা ক্রেতারা মার্কেটে আসার পথে কিংবা ফেরার পথে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ছে। সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ডের নিউমার্কেট ও সিটি সেন্টারের আশপাশে ওত পেতে বসে থাকে ছিনতাইকারী চক্রটি। একাধিক ব্যক্তির অভিযোগ, এ চক্রটি নেশাগ্রস্ত। নেশাগ্রস্ত অবস্থায় মার্কেটের আশপাশে রাস্তায় তাদের ঘোরাঘুরি করতে দেখা যায়। 

সাভার থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, এ চক্রটিকে আইনের আওতায় আনার সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে। ইতিমধ্যে কয়েক জনকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটার সঙ্গে সঙ্গেই ভুক্তভোগীদের পুলিশকে জানানোর জন্য তিনি পরামর্শ দেন।

ইত্তেফাক/ইআ